Flash News
News add
News
Image

গরমের সময় খাবারের মেনুতে রাখুন টক দই

News add

গরমে নিত্য ডায়েটে সঙ্গে রাখুন রায়তা, লস্যি, টক দইয়ের ছাঁচ বা এক বাটি টক দই। শরীর থেকে টক্সিন দূর করে শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে টক দই।

 

শহরে গরমের তাপমাত্রা তড়তড়িয়ে বাড়ছে। আর এই গরমে শরীরকে ভিতর থেকে ঠান্ডা রাখতে টক দই ছাড়া কোন কথা হবে না। ফলের সঙ্গে টক দই মিক্সার গ্রাইন্ডার দিয়ে ঘুরিয়ে নিলেই রেডি হেলদি ব্রেকফাস্ট। অথবা মাছ, মাংস, পনির রান্নায় টক দই আলাদা স্বাদ এনে দেয়। বিরিয়ানির সঙ্গে রায়তা হলে তো পুরো মাখো মাখো একটা ব্যাপার চলে আসে। টক দইয়ে রয়েছে নানান উপকারীতা। যা আমাদের রোজকার ডায়েটে রাখলে শরীর থাকবে সুস্থ ও প্রাণোচ্ছল।

 

টক দই হজমে সাহায্য করে। একাধিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে টক দইয়ে থাকা ব্যাকটেরিয়া গুলি আমাদের ইমিউনিটি সিস্টেমকে ভালো রাখে টক দই পেপটিক আলসার নিরাময়ে সাহায্য করে, কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। শরীর থেকে টক্সিন দূর করতে টক দইয়ের কোন তুলনা হয়না।

 

শরীর ডি-টক্সিফাই করতে টক দইয়ের ব্যবহারগুলি দেখে নিন,

 

টক দইয়ের ছাঁচ বানান: নিত্য ডায়েটে দইয়ের ছাঁচ অন্তর্ভুক্ত করুন। এতে আপনার অ্যাসিডিটি কমবে। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হবে। হজমে সাহায্য করবে। শরীর ঠাণ্ডা থাকবে। ছাঁচের সঙ্গে অল্প জিরে ও নুন মিশিয়ে খান তাতে স্বাদ আরও বেড়ে যাবে।

 

টক দইয়ের সঙ্গে বাদাম ও ফল মিশিয়ে খান: টক দইয়ের সঙ্গে বাদাম বা ফল মিশিয়ে খেলে এর গুন আরও অধিক পরিমানে বেড়ে যাবে। গরমে শরীর সুস্থ ও শীতল থাকবে।

 

টক দই দিয়ে স্মুদি বানিয়ে ফেলুন: টক দইয়ের সঙ্গে নিজের পছন্দ সই ফল দিয়ে বানিয়ে ফেলুন স্মুদি। যা একটি অত্যন্ত উপকারি হেলদি ব্রেকফাস্ট। ওয়ার্ক আউটের পর এই স্মুদি পান করতে পারেন। চিনি ছাড়া টক দই খান বেশি উপকারি।

 

ঘরেই পাতুন টক দই: বাইরের কেনা টক দইয়ের থেকে ঘরে পাতা টক দইয়ের উপকরিতা অনেক পরিমানে বেশি। দোকানের কেনা ফুল ক্রিম মিল্ক টক দই ওজন বৃদ্ধি করে। ফলে উপরের আলোচিত পদ্ধতি গুলি থেকে উপকারিতা পাবেন যদি সেগুলি ঘরে পাতা টক দইয়ের সাহায্যে ব্যবহার করেন। ঘরে পাতা টক দইয়ের স্বাদ এবং স্বাস্থ্যকরী গুন অনেক বেশি। সংগৃহীত.........

News add
লাইফ স্টাইল